নতুন প্রকাশঃ

মামুনুল হক

বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছে না হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের। নারায়ণগঞ্জে নারীসহ অবরুদ্ধ হওয়ার পর থেকে আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়েছে। যা এখনও চলছে। এবার সেই আলোচনায় আগুনে ঘি ঢাললেন মামুনুল হক নিজেই।

 নারায়ণগঞ্জে রিসোর্টের ঘটনার পর থেকেই সঙ্গে থাকা নারীকে দ্বিতীয় স্ত্রী দাবি করে আসা মাওলানা মামুনুল হক এবার তৃতীয় বিয়ের দাবি করেছেন। এক বছর আগে গাজীপুরের কাপাসিয়ার বাসিন্দা এক নারীকে তিনি বিয়ে করেন বলে ওই নারীর ভাইকে জানান।  


বিষয়টি নিয়ে তার ওই নারীর ভাই শাজাহান সাজু সংবাদমাধ্যমের সাথে কথা বলেন। তিনি বলেন,  ‘শনিবার (১০ এপ্রিল) মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসায় ডেকে নিয়ে মামুনুল হক আমার বোনকে বিয়ে করার কথা জানান। এ সংক্রান্ত একটি স্ট্যাম্প দেখিয়েছেন তিনি। তবে এটি কাবিননামা নয়।’


বিষয়টি নিয়ে মামুনুল হকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তিনি গণমাধ্যমের সাথে কথা বলেন নি। মোবাইলে ক্ষুদেবার্তা পাঠানো হলেও তিনি কোনো মন্তব্য করেন নি।


আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একটি সূত্র জানায়, মামুনুল হক যে নারীকে তৃতীয় স্ত্রী হিসেবে দাবি করছেন তিনি এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশে মাস্টার্স করেছেন। ২০১৩ সালে যখন তিনি ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন, তখন তাদের মধ্যে পরিচয় হয়। আড়াই বছর আগে ওই নারীর বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। এরপর ওই নারীকে একটি মহিলা মাদ্রাসায় শিক্ষক হিসেবে চাকরি দেন মামুনুল হক। এরপর থেকেই তাদের মধ্যে সম্পর্ক গড়ে ওঠে।


বিচ্ছেদের পর ওই নারীকে কেরানীগঞ্জের একটি বাসায় রাখেন মামুনুল হক। সম্প্রতি রিসোর্টকাণ্ডের পর এই নারীকে মামুনুল হক তার বড় বোনের বাসায় রেখেছেন। 


এদিকে, মামুনুল হকের দ্বিতীয় বিয়ের ঘটনা তার ব্যক্তিগত বিষয় বলে মন্তব্য করেছেন সংগঠনটির মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরী। এ বিষয়ে হেফাজতের কোনো বক্তব্য নেই বলেও জানিয়েছেন তিনি।


রোববার (১১ এপ্রিল) চট্টগ্রামের দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসায় হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আনুষ্ঠানিক বৈঠক শেষে গণমাধ্যমের সামনে এমন মন্তব্য করেন বাবুনগরী। তিনি আরও বলেন, মামুনুল হকের দ্বিতীয় বিবাহ শরীয়ত সম্মত। এটা নিয়ে আমাদের কোনো বক্তব্য নেই।


 হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার করগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শাহ এমরান আলী (৬৫) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। করোনা টিকার প্রথম ডোজ নেওয়ার পাঁচদিন পর মারা গেলেন তিনি। 

শুক্রবার (৯ এপ্রিল) সন্ধ্যায় সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। হবিগঞ্জের ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মুখলিছুর রহমান উজ্জল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, শাহ এমরান আলী গত ৪ এপ্রিল নবীগঞ্জের করগাঁও ইউনিয়নের দুর্গাপুর কমিউনিটি ক্লিনিকে করোনা টিকার প্রথম ডোজ নেন। ওইদিনই তিনি জ্বরে আক্রান্ত হলে রাত দুইটায় সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভর্তির পর তার করোনা পরীক্ষায় ফলাফল পজিটিভ আসে। ৫ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর শুক্রবার সন্ধ্যায় সেখানেই তার মৃত্যু হয়েছে।

 

খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গত ৪ এপ্রিল তার শরীরে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়ে। তবে তার শারীরিক অবস্থা ভালো। শনিবার (১০ এপ্রিল) খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার জাগো নিউজকে এ তথ্য জানান।

খাদ্য মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সচিব সুস্থ আছেন, শারীরিক কোনো জটিলতা নেই। বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন। নাজমানারা খানুম প্রশাসনের নারী ক্যাডার কর্মকর্তাদের সংগঠন বিসিএস উইমেন নেটওয়ার্কের সভাপতি। বিসিএস ১৯৮৬ ব্যাচের প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তা নাজমানারা দেশের প্রথম নারী বিভাগীয় কমিশনার। তিনি এর আগে খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালকর দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৯ সালের ১৮ ডিসেম্বর সচিব পদে পদোন্নতি দিয়ে তাকে খাদ্য মন্ত্রণালয়ে পদায়ন করা হয়।

 

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, 'এই জনপদের কত মানুষ আজ করোনার আঘাতে নিঃস্ব-রিক্ত। তবু কেউ মানে না স্বাস্থ্যবিধি। মাস্ক পরতে চায় না বেশিরভাগ মানুষ। লকডাউনের কড়াকড়িতে ঢিলেঢালা ভাব। পাত্তাই দিচ্ছে না কেউ ভয়ঙ্কর করোনাকে। কিন্তু করোনা কাউকে করে না করুণা।


তিনি বলেন, 'নিজেদের সুরক্ষার স্বার্থে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার করোনা নিষেধাজ্ঞা আমরা মানবো না? না মানলে আমাদের সামনে নির্ঘাত অশনি সংকেত।'


শনিবার দুপুরে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে এসব কথা বলেন তিনি। 


ওবায়দুল কাদেরের সেই স্ট্যাটাস সমকাল পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো-


'ভাইরাস আবারো হিংস্র ছোবল মারছে আমাদের উদাসীন শহরে, চরম উপেক্ষার গ্রামীণ জীবনে। চারদিকে ছড়িয়ে পড়েছে আতঙ্ক। হাসপাতালের বেডের জন্য সংক্রমিত মানুষের স্বজনদের হাহাকার। খেটে খাওয়া মানুষের জীবিকার চাকা থেমে যাচ্ছে। থেমে যাচ্ছে জীবনের চিরচেনা সুর। থেমে গেছে সেই পাখির কলরব। থেমে গেছে নদীর কলতান। থমকে গেছে চন্দ্র-তারকা খচিত রাতগুলো। বদলে গেছে প্রকৃতির রঙ, বদলে গেছে জীবনের রঙ, বদলে গেছে রাজনীতির রঙ, বদলে গেছে আমাদের আচার-আচরণের রঙ। শুধু বদলায়নি অনিয়মের নিরন্তর যাত্রা। বদলায়নি শৃঙ্খলা ভঙ্গের অপরাধ। মানুষের শত্রু ভাইরাসকে মানুষই জানাচ্ছে সাদর আমন্ত্রণ। অথচ এই প্রাণঘাতী ভাইরাস কেড়ে নিয়েছে কত আপনজনের প্রাণ।

কাদেরের সেই স্ট্যাটাস 


নিভিয়ে দিয়েছে কত চোখের বাতি। তছনছ করে দিয়েছে কত সাজানো সংসার। এই জনপদের কত মানুষ আজ করোনার আঘাতে নিঃস্ব-রিক্ত। তবু কেউ মানে না স্বাস্থ্যবিধি। মাস্ক পরতে চায় না বেশিরভাগ মানুষ। লকডাউনের কড়াকড়িতে ঢিলেঢালাভাব। পাত্তাই দিচ্ছে না কেউ ভয়ঙ্কর করোনাকে। কিন্তু করোনা কাউকে করে না করুণা। জানি না আর কতকাল গুনতে হবে আমাদের নিজেদের অবহেলার, উপেক্ষার চরম মাশুল। আমাদের সচেতন হবার সময় কি এখনো আসেনি? দেশের জনগণের নিশ্চিন্ত ঘুমের জন্য যিনি সারারাত জেগে থাকেন তার বারবার উচ্চারিত সতর্কবাণী কি কানে পৌঁছায় না? নিজেদের সুরক্ষার স্বার্থে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার করোনা নিষেধাজ্ঞা আমরা মানবো না? না মানলে আমাদের সামনে নির্ঘাত অশনি সংকেত।'


 

পটুয়াখালীর মহিপুরে বিয়ে বাড়িতে মাংস কম দেওয়াকে কেন্দ্র করে কনে ও বরপক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। এর মধ্যে গুরুতর আহত রাসেল (২৫), সেলিম (৩০) ও হাসানকে (২৬) কলাপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।শুক্রবার (৯ এপ্রিল) দুপুর তিনটার দিকে বিপিনপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এসময় ভাঙচুর করা হয় বিয়ের প্যান্ডেলসহ আসবাবপত্র। 

স্থানীয়দের সূত্রে জানা যায়, প্রায় দেড় মাস আগে বিপিনপুর গ্রামের তোফাজ্জেলের ছেলে আরিফের সঙ্গে একই গ্রামের রাজ্জাকের মেয়ে রাজিয়ার বিয়ে হয়। গত বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে ছেলে পক্ষ মেয়েকে তুলে আনেন।পরে শুক্রবার দুপুরে বৌ-ভাতে মেয়ে পক্ষের লোকজন ছেলের বাড়িতে মেয়েকে নিতে আসেন। খাওয়া দাওয়ার আগে মেয়ে পক্ষের লোকজনকে মাংস কম দেওয়াকে কেন্দ্র করে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

মহিপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হইবে।

 


 শুরু থেকেই লকডাউনের ঘোর বিরোধী ছিলেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জেইর বলসোনারো। আবারও নিজের সেই অবস্থান জোরালোভাবে ব্যক্ত করলেন তিনি। দেশজুড়ে লকডাউন দিতে চান না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন বলসোনারো। দেশটিতে করোনাভাইরাসে একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষ মৃত্যুর একদিন পর এমন মন্তব্য করলেন তিনি।  বুধবার ব্রাজিলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে ৩ হাজার ৮২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর আগের দিন ৪ হাজার ১৯৫ জনের মৃত্যু হয়েছিল। গত বছর দেশটিতে করোনার সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর যা একদিনে সর্বোচ্চ। চাপেকো শহরে দেয়া এক ভাষণে বলসোনারো বলেন, ঘরে থাকা এবং সবকিছু বন্ধ করে দেয়ার রাজনীতি আমরা মেনে নেবো না।তিনি বলেন, কোনও জাতীয় লকডাউন দেয়া হবে না। করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকায় বলসোনারোর ওপর লকডাউন দেয়ার চাপ বাড়ছে। কিন্তু করোনাকে শুরু থেকেই খাটো করে দেখান ব্রাজিলের ট্রাম্প খ্যাত বলসোনারো। এমনকি স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা করোনার সংক্রমণ রোধে কঠোর লকডাউন দিতে অনুরোধ জানালেও তা প্রত্যাখ্যান করেন তিনি।  জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব মতে, ব্রাজিলে এ পর্যন্ত ৩ লাখ ৩৬ হাজারের বেশি মানুষ করোনায় মারা গেছে। তারা বলছে, এই ভাইরাসের বিস্তার রোধে যদি কোনও পদক্ষেপ না নেয়া হয়, তাহলে মৃত্যুর সংখ্যা আরও বাড়বে বলে প্রোজেকশনে দেখা যাচ্ছে। ব্রাজিলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বুধবারও দেশটিতে ৯২ হাজার ৬২৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে।


 ডেস্ক রিপোর্ট: আগামী ১৩ এপ্রিল থেকে পবিত্র মাহে রমজান শুরু হচ্ছে বলে সংবাদ প্রকাশ করেছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা। এদিন থেকে মাসব্যাপী রোজা রাখবেন বিশ্বের কোটি কোটি মুসলমান।  হিজরি পঞ্জিকা অনুসারে আগামী সপ্তাহেই শুরু হচ্ছে পবিত্র মাহে রমজান। পবিত্র মাসটিতে সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত পানাহার থেকে বিরত থাকবেন রোজাদাররা। এরই মধ্যে, রমজানের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন তারা।     এর আগে গত ২১ মার্চ চলতি বছরে রমজান মাসের সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি প্রকাশ করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন (ইফা)।১৩ মার্চ ইসলামিক ফাউন্ডেশন ১৪৪২ হিজরির রমজান মাসের সেহরি ও ইফতারের এ সময়সূচি চূড়ান্ত করে। এরপর ২১ মার্চ গণমাধ্যমে এ চিঠি পাঠায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন।  সময়সূচিতে উল্লেখ করা হয়েছে, প্রথম রমজানে ঢাকায় সেহরির শেষ সময় ভোর ৪টা ১৫ মিনিট ও ইফতারির সময় ৬টা ২৩ মিনিট।  তবে দূরত্ব অনুযায়ী ঢাকার সময়ের সঙ্গে সর্বোচ্চ ১১ মিনিট পর্যন্ত যোগ করে ও ১০ মিনিট পর্যন্ত বিয়োগ করে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষ সেহরি ও ইফতার করবেন বলেও উল্লেখ করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন। সময়টিভি

 

হবিগঞ্জের মাধবপুরে পিকআপ ভ্যানচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী চুনারুঘাট পৌর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি শিপন আহমেদ খান (২২) নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও একজন আহত হয়েছেন।বুধবার (৭ এপ্রিল) দুপুরে মাধবপুর উপজেলার সুরমা চা বাগান এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত শিপন চুনারুঘাট শহরের উত্তর বাজার এলাকার বাসিন্দা ও সাবেক সেনা সদস্য নজির আলীর ছেলে। পুলিশ জানায়, শিপনসহ দুইজন মোটরসাইকেলে চুনারুঘাট থেকে মাধবপুর যাচ্ছিলেন। পথে সুরমা চা বাগান এলাকায় একটি পিকআপ ভ্যান মোটরসাইকেলটিকে পেছন থেকে চাপা দিলে তারা দুইজন ছিটকে পড়েন। এতে ঘটনাস্থলেই শিপন মারা যান। দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেলটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়।তেলিয়াপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক গোলাম মোস্তফা জানান, সড়ক দুর্ঘটনায় একজন নিহত ও আরেকজন আহত হয়েছেন। আহত চান মিয়াকে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি চুনারুঘাট উত্তরবাজার এলাকার জলিল মিয়ার ছেলে।

 

ভয়াবহ আকার ধারণ করছে করোনাভাইরাস। করোনার নতুন ঢেউয়ে প্রতিদিনই ভাঙছে আক্রান্তের রেকর্ড। এমন একটি ভাইরাস যা ভিআইপি, এমপি, মন্ত্রী, ধনী, গরীব, যুবক, বৃদ্ধ কাউকে চিনছে না। কে কিভাবে আক্রান্ত হচ্ছেন তা নিজেও জানতে পারেন না। সর্বোচ্চ সতর্ক থেকেও রক্ষা পাচ্ছেন না মরণঘাতি এই ভাইরাসের হাত থেকে। করোনায় মারা যাচ্ছেন ধার্মিক, অধার্মিক, গরীব, ধনী থেকে ভিআইপি, এমপি, মন্ত্রীরা। ভিআইপিরা যে যার মতো সাবধানতা অবলম্বন করে চলার চেষ্টা করছেন। আক্রান্ত হলেও সর্বোচ্চ ভাল চিকিৎসা নিচ্ছেন তবুও শেষ রক্ষা হচ্ছে না।


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিটি অনুষ্ঠানেই বক্তব্য রাখার সময় সবাইকে সাবধান থাকতে বলছেন, মাস্ক ব্যবহার, বেশি বেশি সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার কথা মনে করিয়ে দিচ্ছেন। করোনার প্রকোপ বাড়াতে লকডাউনও দিয়েছে সরকার। কিন্তু জনগণ যে যার মতো স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই চলছেন। তাই বেড়েই চলেছে করোনা। করোনার এই নতুন ঢেউয়ে সরকারের প্রতিমন্ত্রী, জাতীয় সংসদের হুইপসহ অন্তত ৩০ জন সংসদ সদস্য আক্রান্ত হয়েছেন। নতুন করে আক্রান্ত হওয়াদের মধ্যে রয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর ২ জন সদস্য ও সম্পাদকমন্ডলীর ২ জন সদস্য। জাতীয় সংসদ ও আওয়ামী লীগ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।


তথ্য অনুযায়ী, আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও কুমিল্লা-৫ আসনের এমপি অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু, চট্টগ্রাম-১ আসনের এমপি ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, জামালপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান, চট্টগ্রাম-১২ আসনের এমপি ও সরকার দলীয় হুইপ শামসুল হক চৌধুরী, আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও নেত্রকোণা-৩ আসনের এমপি অসীম কুমার উকিল, আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও গাজীপুর-৫ আসনের এমপি মেহের আফরোজ চুমকি, গাজীপুর-৪ আসনের এমপি বঙ্গতাজ কন্যা সিমিন হোসেন রিমি, রাজবাড়ী-১ আসনের এমপি ও সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী করোনা আক্রান্ত।


এছাড়া কক্সবাজার-১ আসনের এমপি জাফর আলম, কক্সবাজার-২ আসনের এমপি আশেক উল্লাহ রফিক ও কক্সবাজার-৪ আসনের এমপি শাহীন আক্তার (সাবেক এমপি আব্দুর রহমান বদির স্ত্রী ), কুমিল্লা-৪ আসনের এমপি রাজী মোহাম্মদ ফখরুল, ফেনী-২ আসনের এমপি নিজাম উদ্দিন হাজারী, নোয়াখালী-৩ আসনের এমপি মামুনুর রশিদ কিরণ, হবিগঞ্জ-১ আসনের এমপি গাজী মোহাম্মদ শাহনওয়াজ, হবিগঞ্জ-২ আসনের এমপি আব্দুল মজিদ খান, রাজশাহী-১ আসনের এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী, বরিশাল-৪ আসনের এমপি পঙ্কজ দেবনাথ, ঢাকা-২০ আসনের এমপি বেনজির আহমেদ, পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পাবনা-২ আসনের সংসদ সদস্য আহমেদ ফিরোজ কবির, সিরাজগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য তানভীর ইমাম, টাঙ্গাইল-২ আসনের এমপি তানভীর হাসান ছোট মনির, ঢাকা-৭ আসনের এমপি হাজী মো. সেলিম, বগুড়া-৭ আসনের এমপি রেজাউল করিম বাবলু করোনাভাইরাতে আক্রান্ত। সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্যদের মধ্যে নাহিদ ইজহার খান, শিরীন আহমেদ, জান্নাতুল বাকিয়া, অ্যারোমা দত্ত, রওশন আরা মান্নান, অ্যাডভোকেট খোদেজা নাসরিন আক্তার হোসেন আক্রান্ত। সাবেক এমপি সারাহ বেগম কবরী করোনা আক্রান্ত। ঢাকা-১৭ আসনের এমপি আকবর হোসেন পাঠান ফারুক (নায়ক ফারুক) করোনা নেগেটিভ হয়ে চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে গিয়ে অসুস্থ্য হয়ে আইসিইউতে রয়েছেন।


করোনা নেগেটিভ এলেও সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের আইসিইউতে রয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও কুমিল্লা-৫ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু। গত ১৫ মার্চ আব্দুল মতিন খসরু সংসদ সচিবালয়ে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন। ১৬ মার্চ সকালে তার রিপোর্টে করোনা পজিটিভ আসে। ওইদিনই তাকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি করা হয়। গত ২৮ মার্চ রাত ১২টার দিকে আব্দুল মতিন খসরুকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। পরে ১ এপ্রিল করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ আসে। গত ৩ এপ্রিল মতিন খসরুকে সিএমএইচের আইসিইউ থেকে সাধারণ কেবিনে স্থানান্তর করা হলেও ৬ এপ্রিল রাতে পুনরায় আইসিইউতে নেওয়া হয়।


৬ এপ্রিল করোনা আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছেন আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও নেত্রকোণা-৩ আসনের সংসদ সদস্য অসীম কুমার উকিল। এর আগে করোনা পজিটিভ আসায় ঢাকায় নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও গাজীপুর-৫ আসনের সংসদ সদস্য মেহের আফরোজ চুমকি।


গত ৩১ মার্চ সিরাজগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য তানভীর ইমাম জাতীয় সংসদ ভবন সংলগ্ন বুথে কোভিড-১৯ পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন। সন্ধ্যায় তার নমুনা পরীক্ষায় করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। বর্তমানে তিনি রাজধানীর বাসায় আইসোলেশনে রয়েছেন। মঙ্গলবার তার শারীরিক কিছু পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে তিনি এখন মোটামুটি সুস্থ ও ভালো আছেন।


করোনা আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর হেলথ অ্যান্ড হোপ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন সংরক্ষিত আসনের এমপি খোদেজা নাসরিন আক্তার হোসেন। জাতীয় সংসদ অধিবেশনে যোগদানের আগে ২ এপ্রিল করোনা পরীক্ষার নমুনা দেন তিনি। ৩ এপ্রিল সকালে রিপোর্টে করোনা পজিটিভ আসে। ওইদিন রাতে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। বর্তমানে তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে।


টিকা নেওয়ার প্রায় দুই মাস পরে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পাবনা-২ আসনের সংসদ সদস্য আহমেদ ফিরোজ কবির। গত ৩০ মার্চ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ে নমুনা দিয়ে আসার পর ৩১ মার্চ দুপুরে তিনি করোনা পজিটিভ রিপোর্ট পান। বর্তমানে বাসায় আইসোলেশনে আছেন।


গত ৩ এপ্রিল জাতীয় সংসদ সচিবালয়ে করোনার নমুনা দিলে ৪ এপ্রিল পজিটিভ রিপোর্ট আসে টাঙ্গাইল-২ আসনের সংসদ সদস্য তানভীর হাসান ছোট মনির। বর্তমানে ঢাকায় তার বাসায় আইসোলেশনে রয়েছে। টিকা নেওয়ার দেড় মাস পর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী। গত ২৫ মার্চ করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসায় রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি।


করোনা আক্রান্ত হয়ে গত ৩০ মার্চ থেকে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন গাজীপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য বঙ্গতাজ কন্যা সিমিন হোসেন রিমি। এর আগে গত ২৩ মার্চ করোনা আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর ল্যাব এইড হাসপাতালে ভর্তি হন ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য এবং মদিনা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাজী মো. সেলিম। করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৫ এপ্রিল রাতে সাবেক এমপি সারাহ বেগম কবরী রাজধানীর কুর্মিটোলা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। চলতি সপ্তাহেই জ্বর আসে কবরীর। শরীরে ব্যথাও ছিলো। করোনা নমুনা পরীক্ষা হলে রিপোর্টে করোনা পজিটিভ এসেছে।


এদিকে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অভিনেতা ও সংসদ সদস্য আকবর হোসেন পাঠান ফারুক জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছেন। গত ২১ মার্চ থেকে তিনি হাসপাতালটির আইসিইউতে অজ্ঞান অবস্থায় রয়েছেন। পাকস্থলীতে রক্তক্ষরণের কারণে তার অবস্থা বেশ গুরুতর বলে জানিয়ে তার ছেলে শরৎ বলেন, বাবার রক্তে ব্যাক্টেরিয়াজনিত সংক্রমণ ভয়াবহভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। পাকস্থলীতে ইন্টারনাল রক্তক্ষরণ হয়েছে। গত ৪ মার্চ নিয়মিত চেকআপের জন্য সিঙ্গাপুর যান ফারুক। সেখানে গিয়ে আরও বেশি অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। এর আগে রক্তে সংক্রমণ ও টিবি ধরা পড়ার কারণে তাকে সিঙ্গাপুরেই প্রায় ৪৭ দিন হাসপাতালে কাটাতে হয়েছিল। কিছুটা সুস্থ হয়ে দেশে ফেরার পর করোনায় আক্রান্ত হন। এরপর সুস্থ হয়ে সিঙ্গাপুরে নিয়মিত চেকআপের জন্য গেলে সেখানে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন।


এদিকে করোনায় মারা গেছেন বেশ বর্তমান সংসদের বেশ কয়েকজন এমপি এবং সাবেক এমপি। এর মধ্যে রয়েছেন, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ আব্দুল্লাহ, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান, এটর্নী জেনারেল মাহবুবে আলম, ঢাকার সাবেক এমপি হাজী মকবুল হোসেন, নওগা-৬ আসনের এমপি ইসরাফিল আলম, সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী, মৌলভীবাজার জেলার সাবেক এমপি তোয়াবুর রহিম, মানিকগঞ্জ-২ আসনের সাবেক স্বতন্ত্র এমপি শামসুদ্দিন আহমেদ, সাবেক প্রতিমন্ত্রী আ খ ম জাহাঙ্গীর, সাবেক মন্ত্রী ও বিএনপি নেতা চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, সাবেক জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী মোশাররফ হোসেন, সাবেক প্রতিমন্ত্রী মেজর জেনারেল (অব) আনোয়ারুল কবির তালুকদার, সাবেক এমপি আবু হেনা, সাবেক এমপি ও কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা আমজাদ হোসেন, কুমিল্লা-১০ আসনের সাবেক এমপি ও জাতীয় পার্টি নেতা এটিএম আলমগীর।


দেশের সুশীল সমাজ, ব্যবসায়ীদের মধ্যেও করোনায় মারা গেছেন অনেকে। তাদের মধ্যে রয়েছেন, শিক্ষাবিদ, লেখক ও জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বাবুল, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ও অ্যাপেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান সৈয়দ মঞ্জুর এলাহীর স্ত্রী সানবিমস স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল নিলুফার মঞ্জুর, এস আলম গ্রুপের পরিচালক মোরশেদুল আলম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ও ফারইস্ট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ভিসি, ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংকের সাবেক কর্মকর্তা ড. নাজমুল করিম, শান্ত-মারিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজির ও সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস (প্রা.) লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ইমামুল কবীর শান্ত, খ্যাতিমান প্রকৌশলী জাতীয় অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী, রাজউকের সাবেক চেয়ারম্যান বজলুল করিম চৌধুরী, টিভি ব্যাক্তিত্ব প্রযোজক, নাট্য নির্দেশক, অভিনেতা, আবৃত্তিকার মোস্তফা কামাল সৈয়দ, প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদের ছোট ভাই বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক আবদুল হাই, এনটিভির সাবেক বার্তা সম্পাদক সুমন মাহমুদ, দৈনিক সময়ের আলোর নগর সম্পাদক হুমায়ুন কবীর খোকন, ভোরের কাগজের ক্রাইম রিপোর্টার গীতিকার আসলাম রহমান, দৈনিক সময়ের আলোর মাহমুদুল হাকিম অপু।


এদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সুস্থ্য হয়েছেন অনেকে। তাদের মধ্যে রয়েছেন, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এবং মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মোজাম্মেল হক, পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নান, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ও জামালপুর-২ ফরিদুল হক খান দুলাল, সাবেক স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য অ্যাড. জাহাঙ্গীর কবির নানক, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও কুষ্টিয়া-৩ আসনের এমপি মাহবুবউল আলম হানিফ, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাবেক চীফ হুইপ উপাধ্যক্ষ আবদুস শহীদ, সাবেক হুইপ নওগাঁ-২ আসনের শহিদুজ্জামান সরকার, রেল মন্ত্রণালয় বিষয়ক কমিটির সভাপতি এ বি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি, যশোর-৪ আসনের এমপি রণজিত কুমার রায়, চট্টগ্রাম-৮ আসনের এমপি মোসলেম উদ্দিন, চট্টগ্রাম-১৬ আসনের এমপি মোস্তাফিজুর রহমান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ এবাদুল করিম বুলবুল এবং গণফোরাম দলীয় সংসদ সদস্য মোকাব্বির খান


আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জয়পুরহাটের এমপি আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন ও শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক আবদুস সবুর, দফতর সম্পাদক বিপ্লব বড়–য়া, যুবলীগের চেয়ারম্যান ফজলে শামস পরশ, সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ, সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, ঢাকা দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির, যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ, সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ।

MKRdezign

Hi

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget